কার্ট

সব বই লেখক বিষয়

বিষয় লিস্ট

হুমায়ূন কবীর এর সফলতার পথে

এক নজরে

মোট পাতা: 142

বিষয়: আত্মউন্নয়ন

** বইটি ডাউনলোড করে পড়তে আপনার সেইবই অ্যাপটি ব্যবহার করুন।

প্রয়োজনীয় সফলতা ও প্রক্রিয়া

 

 

 

সফলতাকে দোকানের পণ্যের মতো কেনা যায় না— একে অর্জন করে নিতে হয়। চাহিদামতো পণ্য পেতে চাইলে যেমন সে পণ্যের নাম বলতে হয় তেমনি জীবনে উন্নয়ন, সফলতা পেতে চাইলে তার স্বপ্ন দেখতে হয়, ভাবতে হয়, সেই সাথে প্রয়োজনীয় শ্রম এবং মেধা ঢেলে দিতে হয়। এ কাজ করতে গিয়ে নিজের মনের সব জড়তা তাড়িয়ে দিতে হবে। নদীতে ড্রেজিং করে জলপ্রবাহ তৈরির যেমন প্রয়োজন হয়, আপনার জীবনের চলমান সফলতাও নিরলস গতিতে চালাতে চাইলে সব ধরনের মন্দচিন্তা, মন্দকাজ অপসারণ করতে হবে। কু-চিন্তাকে আমি কম্পিউটারের ভাইরাসের সাথে যদি তুলনা করি- দেখতে পাবো ভাইরাস যেমন কম্পিউটারের মেমোরি নষ্ট করে বা ডিলেট করে দেয় তেমনি কু-চিন্তা উন্নয়নের পথকে বিপর্যয় করে। এন্টিভাইরাস দিয়ে তবেই কম্পিউটার সচল রাখতে হয়। সে অনুসারে আপনার চিন্তা-স্বপ্নকে সফল করতে চাইলে সু-চিন্তা করেই কু-চিন্তা তাড়াতে হবে। অনেকের মনেই এ চিন্তা উদয় হয় যে তারা রাতারাতি সফল হবেন- যা ভ্রান্ত ধারণা। কেননা সফলতার পথ হলো চলমান প্রক্রিয়া।

পৃথিবীর বুকে, ইতিহাসে এমন একটাও নজির নেই যে থেমে থেমে প্রচেষ্টহীন কেউ কোনো সফলতা অর্জন করেছে। বরং অবিরাম চলমান প্রক্রিয়াই জীবনকে বাঁচিয়ে রাখে। এই যে পৃথিবী, যেখানে আমরা বাস করি, সেটাও অবিরাম তার কক্ষপথে ঘুরছে বলেই দিন-রাতের সৃষ্টি। থেমে থাকলে হয়তো রাত নতুবা দিন হতো। যার পরিণামে জীবজন্তু, গাছ-পালা এবং আমরা মানুষেরাও বিলীন হয়ে যেতাম। অতএব, সফলতার জন্যও চলমান নিরলস প্রক্রিয়া চালিয়ে যেতে হয়। প্রকৃতির সবকিছুর প্রতি নিবিড় পর্যবেক্ষণ করলে প্রমাণ হবে যে এর সত্যতা শতভাগ। বাংলাদেশের জনপ্রিয় শিল্পী ফরিদা পারভিন সম্প্রতি মন্তব্য করেছেন যে, তিনি চাঁদে গেলেও সেখানে গানই গাইবেন। অর্থাৎ কিনা তাঁর ধ্যান-ধারণা গান। তাইতো তিনি গানের জগতে সফল তারকা।

প্রিয় নবী হযরত মুহম্মদ মোস্তফা (সা.) ইসলাম প্রচারের জন্য অবর্ণনীয় দুঃখ-কষ্ট ভোগ করেছেন। সারাটা জীবন ইসলাম প্রচারে সচেষ্ট ছিলেন। আল্লাহ্র নির্দেশ পালনে তিনি কখনই অনীহা দেখাননি। সব ধর্মের ধর্মীয় নেতারা সবসময় সত্যের পথে সচল ছিলেন। ধর্ম, অর্থ-বিত্ত, সম্মান, ক্ষমতা অথবা সুখ- যাই আপনি চান না কেন, যা পেতে চান তার ছক আঁকুন। নিরলস পরিকল্পিত কর্ম করে যান, সফলতা আপনার করায়ত্ত হবেই।

এর প্রমাণ হিসেবে রনক ইসলামের লেখা এবং ২১ আগস্ট ২০১৫ এ মুক্তি পাওয়া ভারতের চিত্র পরিচালক কেতন মেহতার “মাঝি দ্য মাউন্টেন ম্যান”- এর বিষয়টি সত্য ঘটনা বিধায় এখানে উল্লেখ না করে পারছি না। কেননা ছবিতে প্রদর্শিত সফলতার নায়ক হলেন দশরথ মাঝি- যাকে উপহাস করে একসময় পাগল বলা হতো, তার বিষয়টি নিম্নরূপ :

 সাল ১৯৬০। একদিন কলসিতে পানি ভরে পাহাড় থেকে নামছিলেন দশরথ মাঝির প্রিয়তমা স্ত্রী ফাল্গুনী দেবী। এমন সময় পা পিছলে পড়ে যান খাদে। এরপরও বেঁচে ছিলেন ফাল্গুনী দেবী। গুরুতর আহত হয়েছিলেন। খবর পেয়ে দশরথ ছুটে আসেন। সঙ্গে আরও ক’জন। ফাল্গুনীকে বাঁচানোর জন্য দরকার চিকিৎসা। কিন্তু ধারে-কাছে হাসপাতাল কিংবা ডাক্তার ছিল না। পাহাড়ের ধার ঘেঁষে ৭০ কিলোমিটার পেরিয়ে হাসপাতাল। দূরত্বের কারণে চিকিৎসা ঠিকমতো হয়নি। দুনিয়া ছেড়ে চলে গেলেন দশরথের স্ত্রী ফাল্গুনী দেবী। সেই দুর্ঘটনা দশরথকে শান্তিতে থাকতে দেয়নি। ভয়াবহ দুঃস্বপ্ন হয়ে তাড়া করে বেড়াত তাকে। কেবলই দেখতেন, স্ত্রী পাহাড় থেকে পড়ে যাচ্ছে গভীর খাদে। স্ত্রীকে ভীষণ ভালোবাসতেন, তাই কোনোমতেই তার অস্বাভাবিক মৃত্যুটাকে মেনে নিতে পারছিলেন না। বারবার মনে হচ্ছিল এই পাহাড়টা না থাকলেই অন্যরকম হতে পারতো। যদি পাহাড়ের মাঝখান দিয়ে একটা রাস্তা থাকতো! সেই ভাবনা থেকে আশপাশের অনেকের সঙ্গে আলোচনা করলেন দশরথ মাঝি। কিন্তু সবার এক কথা- কিচ্ছু করার নেই। দশরথ মাঝি  সেটা মানতে রাজি নন। তার মনে যে আজব এক সংকল্প ঘুরছিল! তিনি প্রস্তাব দিলেন, সবাই মিলে কাটতে হবে পাহাড়। বানাতে হবে পথ। অন্যরা তার কথা শুনে হেসেই উড়িয়ে দিলো। সবার একই কথা- এত বড় পাথুরে পাহাড় কাটা একেবারেই অসম্ভব। দশরথের সেই প্রস্তাবে কেউ রাজি হলো না। তবে এক পর্যায়ে সবাই মিলে স্থানীয় সড়ক বিভাগে যোগাযোগ করলো। কিন্তু সড়ক বিভাগ পাহাড় কেটে রাস্তা বানানোর ব্যাপারে কোনো আগ্রহই দেখালো না। ফলে স্থানীয়রা সবাই হতাশ হয়ে পড়লেন। তারা আবার ফেরত গেলেন আগের অবস্থায়। যেখানে নিয়তিই সব। কিচ্ছু করার নেই। 

সংশ্লিষ্ট বই

পাঠকের মতামত
  • Rating Star

    “ ” - Farida Easmim

  • Rating Star

    “Valo boi kmn hoi amr jana nei.ami regular boi pori na bt ai boi ti porar por Amr amon dhoroner boi porte valo lagce.boi porte amk uthsahi to korce ” - Md Chowdhury

রিভিউ লিখুন
রিভিউ অথবা রেটিং করার জন্য লগইন করুন!