কার্ট

সব বই লেখক বিষয়

বিষয় লিস্ট

এম টি রহমান এর কে আমি

এক নজরে

মোট পাতা: 237

বিষয়: আত্মউন্নয়ন

** বইটি ডাউনলোড করে পড়তে আপনার সেইবই অ্যাপটি ব্যবহার করুন।

কে আমি?

আপনার পরিচয় কী? কোনটা আপনার সত্যিকার আমি?

আমরা যখন জন্মগ্রহণ করি তখন কোনো তথ্য, ধারণা ছাড়াই এ পৃথিবীতে চলে আসি। জন্মের সময় আমাদের কোনো পরিচয়ও থাকে না। কিন্তু যখন আমরা বড় হই তখন আমরা কিছু পরিচয়কে ভালোবেসে ফেলি যদিও আমরা সেগুলোকে অর্জন করতে নাও পারি তবুও।

আপনার প্রকৃত সত্তা হচ্ছে সেটা যা হওয়ার জন্য আপনি সবচেয়ে বেশি উদ্‌গ্রীব থাকেন। আপনার প্রকৃত সত্তায় আপনার পরিচয় যা আপনার মুখে হাসি নিয়ে আসে এবং সুখ অনুভব করেন যখন আপনি সেই পরিচয়ের কথা স্মরণ করেন।

আত্মপরিচয় থাকা গুরুত্বপূর্ণ কারণ এটা স্বতন্ত্র ব্যক্তি হিসেবে দাঁড়াতে সাহায্য করে। নিজের প্রতি ভালোলাগা তৈরি হয় এবং নিজেকে গুরুত্বপূর্ণ বলে মনে হয়। এ ছাড়া পরিচয় জাতি, সমাজ, গোত্র, বর্ণ ইত্যাদি সব স্বতন্ত্র বৈশিষ্ট্য প্রকাশ করে। কোনো কোনো সংস্কৃতি, জাতি, সমাজ, কিছু কিছু বিষয়ের ওপর অত্যধিক গুরুত্ব আরোপ করে যেগুলো পরে সেই দেশের নাগরিকদের গর্ব, স্বাতন্ত্র্য, সম্মানের সাংকেতিক অর্থ বহন করে। উদাহরণ হিসেবে জাতীয় পতাকার কথা বলা যেতে পারে যেখানে নির্দিষ্ট দৈর্ঘ্য, প্রস্থের কাপড় থাকে, নির্দিষ্ট রং, সেই জাতির আগের অর্জনের সব চিহ্ন থাকে যেগুলোর সাথে সেই দেশের নাগরিকদের ঘনিষ্ঠভাবে পরিচিতি থাকে।

মানুষ নিজের পরিচয় প্রকাশ করে মৌখিক এবং অমৌখিক বিষয় ব্যবহার করে যেমন : ভাষা, পোশাক এবং সামাজিক অবস্থান। কিছু কিছু ঐতিহাসিক বিশ্বাস করেন, প্রাণীদেরও স্বতন্ত্র পরিচয়ের অনুভূতি আছে। প্রাণীদের একটি প্রবল জৈবিক নিজস্বতাবোধ আছে, যা তাদের প্রতিকূল পরিবেশে টিকে থাকতে সাহায্য করে এবং নিজেদের অনন্য বৈশিষ্ট্যকে ধারণ করে রাখতে সাহায্য করে।

 

পরিচয় বা মনস্তাত্ত্বিক পরিচয় কী?

পরিচয় বা মনস্তাত্ত্বিক পরিচয় হচ্ছে আপনার সচেতনতা এবং নিবিষ্টভাবে নিজের ভেতরের দিকে তাকানোর ক্ষমতা। মানুষ মূলত পরিচিত হয় যে কাজ করে এবং যেসব বস্তুর সাথে নিজেকে জড়িয়ে রাখে তার মাধ্যমে। যেমন : আপনি যদি কাউকে জিজ্ঞাসা করেন আপনি কে? এবং সে যদি উত্তর দেয় আমি হচ্ছি রিপ্রেজেন্টেটিভ তাহলে সে মানুষটি চাকরির সাথে যুক্ত করে নিজেকে পরিচিত করতে চায় নিজের নাম কামাল বা মবিন না বলে।

আপনার পরিচয় বাছাই করার জন্য খুঁজে দেখুন আপনি কোন বিষয়গুলোকে ঘৃণা করেন এবং কোন বিষয়গুলোকে পছন্দ করেন। কোন পরিচয়ে পরিচিত হওয়ার জন্য অগ্রসর হচ্ছেন এবং কোন পরিচয়গুলো থেকে পালানোর চেষ্টা করছেন। এই অনুশীলন করার মাধ্যমে নিজেকে বোঝার গভীরতা বাড়বে এবং আপনি আপনার ভেতরে বছরের পর বছর ধরে জটপাকানো অনেক পুরনো সব সমস্যার সমাধান পেয়ে যাবেন।

আপনার আসল পরিচয় কী হবে সে সম্পর্কে যখন আপনি দৃঢ় সিদ্ধান্ত নেবেন তখন পরবর্তী কাজ হবে সেই পরিচয় অর্জনের জন্য সামনের দিকে অগ্রসর হওয়া। হ্যাঁ তখনও আপনার বন্ধু থাকবে, আপনার বাচ্চা থাকবে, একজন ভালোবাসার মানুষ থাকবে কিন্তু অন্তরের অন্তস্থলে সেই ইচ্ছাটাই থাকবে, যা আপনি হতে চান। 

সংশ্লিষ্ট বই

পাঠকের মতামত
  • Rating Star

    “ ” - tanvir

  • Rating Star

    “ ” - atik

রিভিউ লিখুন
রিভিউ অথবা রেটিং করার জন্য লগইন করুন!