কার্ট

সব বই লেখক বিষয়

বিষয় লিস্ট

আহমেদ শাহাবুদ্দীন এর এনকোডিং

এক নজরে

মোট পাতা: 216

বিষয়: সাইকো থ্রিলার

** বইটি ডাউনলোড করে পড়তে আপনার সেইবই অ্যাপটি ব্যবহার করুন।

দরজায় যে লোকটি দাঁড়িয়ে আছে তার উচ্চতা ছ’ফুটের বেশি হবে। রোগাটে শরীর। রোগাটে বলে বেশি লম্বা মনে হচ্ছে। যাকে বলে ঢ্যাঙা লম্বা। তার গায়ের রঙ শ্যামলা। চোয়াল বসান। হাতের হাড় মোটা এবং চ্যাপ্টা। মাথার চুলগুলো কোঁকড়া। কদম ছাঁট করা। তার পরনে সাদা ফুলস্লিভ শার্ট আর কালো প্যান্ট। শার্টের হাতা গোটানো। শরীরে শার্ট-প্যান্ট ঢল ঢল করছে। মনে হচ্ছে অন্য কারো শার্ট-প্যান্ট পরে এসেছে। বেল্টের বকলেস ঠিক জায়গায় নেই,একটু সরে গেছে। আনস্মার্টের লক্ষণ। তার শার্টের পিঠ ও বগল ঘামে ভেজা। সম্ভবত বাসা খুঁজে পেতে গলদঘর্ম হয়েছে।

রোগাটে লোকজনদের বয়স সাধারণত বোঝা যায় না। তারপরও যতদূর বোঝা গেল, আগত লোকটির বয়স সাঁইত্রিশ কি আটত্রিশ হবে। চেহারায় নিরীহ একটা ব্যাপার আছে। এই ধরনের নিরীহ ভাব সাধারণত বউয়ের ধাতানি খাওয়া স্বামীদের মধ্যে দেখা যায়। এই লোকটির অবস্থা সে রকম কি না বোঝা যাচ্ছে না। তাকে খুব অসহায় আর অস্বাভাবিক মনে হচ্ছে। মনে হচ্ছে, প্রচণ্ড মানসিক চাপে আছে।

তার চেহারাতেও কিছুটা ঝামেলা আছে। লম্বা লোকজনের মুখের গড়ন সাধারণত লম্বাটে হয়। কিন্তু এই লোকটির মুখের গড়ন গোলাকার। কিছুটা চৌকা টাইপের। দেখলেই মনে হয়,অন্য কারো মাথা তার ঘাড়ে বসিয়ে দেয়া হয়েছে। তার গলাও বেশ লম্বা। লম্বা গলায় গোল মুখখুবই আজব লাগছে দেখতে।

‘আসসালামু আলাইকুম।’

‘অলায়কুম। কাকে চাচ্ছেন?’

‘এটা কি ইকার চৌধুরী সাহেবের বাসা?’

‘জি।’

‘তিনি কি বাসায় আছেন?’

‘আমিই ইকার চৌধুরী।’

লোকটার চৌকা মুখ খানিকটা লম্বা হয়ে গেল। সামনে দাঁড়িয়ে থাকা মানুষটাকে ইকার চৌধুরী বলে বিশ্বাস করতে কষ্ট হচ্ছে। তার সমস্যাটা বুঝতে অসুবিধা হলো না ইকারের। তার নাম শুনে অনেকেরই এরকম হয়। লোকজন ধরে নেয়, তিনি অতিশয় বৃদ্ধ। অল্প কিছুদিনের মধ্যে কেরামুন-কাতেবিন তার হিসেবের খাতা গুটিয়ে ফেলবেন। যে কারণে তাকে সামনাসামনি দেখে অনেকেই অবাক হয়।

লম্বা মানুষের বুদ্ধি সাধারণত কম থাকে। সমাজে এরকম একটা কথা চালু আছে। তবে এই লোকটিকে দেখে সেই ধারণা করা যাচ্ছে না। ইতোমধ্যে সে বাড়ির হোল্ডিং নম্বরের দিকে তাকিয়েছে। ভুল ঠিকানায় চলে এসেছে কি না যাচাই করার চেষ্টা করছে। তার মানে চেহারা-সুরতে তাকে যতটা গো-বেচারা মনে হয় ততটা গো-বেচারা সে না। তার নিজস্ব কিছু হিসাব-কিতাব আছে। কোনো কিছু যাচাই-বাছাই না করে গ্রহণ করে না।

চোখ ফিরিয়ে আরেকটু নিশ্চিত হতে লোকটি বলল, ‘আপনিই ইকার চৌধুরী?’

‘কোনো সন্দেহ আছে?’ পাল্টা প্রশ্ন ইকারের।

‘জি না।’

‘আছে। কারণ আমার প্রশ্নের জবাব আপনি সঙ্গে সঙ্গে দেননি,কিছুটা সময় নিয়েছেন।’

লোকটি খুব অস্বস্তির মধ্যে পড়ে গেল। ধরা খাওয়ার মানুষের চেহারায় চোর চোর ভাব ফুটে ওঠে। এই লোকটির চেহারায় সেরকম ভাব ফুটে উঠেছে। দেখে মনে হচ্ছে, সে সিঁদ কেটে মাথা ঢুকিয়ে দিয়ে লাঠি হাতে বাড়ির মালিককে দেখতে পেয়েছেকী করবে,ভেবে পাচ্ছে না। কঠিন বাংলায় যাকে বলে কিংকর্তব্যবিমূঢ়। তার গোলাকার মুখটা চ্যাপ্টা দেখাচ্ছে।

‘ঘণ্টা দুই আগে আমি আপনাকে ফোন করেছিলাম।’ বিশ্বাস-অবিশ্বাসের ঠেলাঠেলি কাটিয়ে মুখ খুলল লোকটি। হাত দিয়ে একবার মুখের ঘাম মুছল।

ইকার বিরস মুখে বললেন, ‘আপনি তাহলে সেই ব্যক্তি, যে আমার সকালের ঘুম নষ্ট করেছে।’

লোকটি অপ্রস্তুত হয়ে গেল। সম্ভবত মুখের ওপর এ ধরনের কথা শোনার জন্য প্রস্তুত ছিল না। বিব্রত মুখে বলল, ‘সরি। আমি জানতাম না, আপনি দেরি করে ঘুম থেকে ওঠেন।’

ইকার বললেন, ‘সমস্যা নেই। আসুন।’

লোকটি দ্বিধা নিয়ে ভেতরে ঢুকল। ইকার তাকে সোফা দেখিয়ে বসতে বললেন। লোকটি ‘থ্যাঙ্ক ইউ’ বলে সোফায় বসল। তার বসার ভঙ্গিতে জড়সড় একটা ব্যাপার আছে। অতি ভদ্রতা দেখাতে সে দু’হাঁটু এক করে বসেছে। দেখে মনে হচ্ছে, প্যান্টের তলা ফেটে গেছে। পা ছড়িয়ে বসলে গোমর ফাঁস!

ইকার আরেকবার ভালো করে দেখে নিলেন লোকটিকে। লোকটি পোশাকে-আশাকে ফিটফাট হলেও তার চেহারায় দারিদ্রে্যর ছাপ আছে। নব্য ধনীদের চেহারায় এই ছাপ থাকে। দামি পোশাক পরলেও তাদের দামি মানুষ মনে হয় না। তবে এই লোকটিকে নব্য ধনী ভাবা যাচ্ছে না। কারণ সে যে জুতো পরে এসেছে তার চামড়া ফাটা। ধুলায় মাখামাখি। নব্য ধনীদের চেহারার চেয়ে জুতো বেশি চক চক করে।

লোকটি বিবাহিত হওয়ার সম্ভাবনা বেশি। সাঁইত্রিশ-আটত্রিশ বছর বয়সে সাধারণত কেউ অবিবাহিত থাকে না। এই লোকটিরও অবিবাহিত থাকার কোনো কারণ নেই। তার স্বভাবে মিনমিনে একটা ব্যাপার আছে। মিনমিনে স্বভাবের লোকজনের মধ্যে বিবাহ-উন্মাদনা বেশি কাজ করে। ঘোপেঘাপে এদের মেয়েদের গায়ে হাত দেয়ার স্বভাবও থাকে।

লোকটির দু-তিনটা ছেলেমেয়ে থাকতে পারে। তিনটা থাকার সম্ভাবনা বেশি। দুটো পরিবার পরিকল্পনা অনুযায়ী। একটা দুর্ঘটনাবশত। 

সংশ্লিষ্ট বই

পাঠকের মতামত
  • Rating Star

    “ ” - Wasee Rafi

রিভিউ লিখুন
রিভিউ অথবা রেটিং করার জন্য লগইন করুন!